ডিটক্স ওয়াটার: পানি যখন ত্বকের ওষুধ

বিউটি প্রোডাক্ট আপনার স্কিনকে উজ্জ্বল, মসৃণ ও চকচকে করে তোলে। কিন্তু প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আসে একদম ভেতর থেকে। যাহাই আমরা দেহের ভেতরে জমা করি তাহাই সৌন্দর্যরূপে বাইরে বেরিয়ে আসে। তাই শরীরের ভেতরটা সুন্দর রাখা বাহিরকে সুন্দর রাখার চাইতে অতীব গুরুত্বপূর্ণ। ভেতরটা পরিষ্কার হলে বাইরের সৌন্দর্য তখন এমনি ফুটে উঠে। 

পানির অপর নাম যেমন জীবন, ঠিক তেমনি উজ্জ্বল ত্বকের মূল চাবিকাঠি হচ্ছে পানি। কেননা, পানি শরীরের বিষাক্ত পদার্থগুলোকে শরীর থেকে ঝরিয়ে ফেলে, কোষগুলোতে পুষ্টি সরবরাহ করে, এবং কোষ ও ত্বককে হাইড্রেটেড রাখতে সাহায্য করে। আর পানি পানের ফলাফল হচ্ছে জ্বলজ্বলে ত্বক। কিন্তু স্বাদহীন একগ্লাস পানি পান করাটা হয়তো বিরক্তিকর নয়; তবে এক বোতল অবশ্যই বিরক্তিকর হতে পারে। তাহলে সেই বিরক্তিকে ঝেটে ফেলে পানিটাকে কি টেস্টি করে তোলা যায় না? এই যেমন ফলমূল, শাকসবজি এবং ভেষজ দিয়ে একটু ভিন্ন পানীয়র ব্যবস্থা। বলছিলাম ডিটক্স ওয়াটারের কথা। অনেকেই হয়তো জানেন আবার অনেকেই হয়তো জানেন না। তাই, আজকের আয়োজনে থাকছে ডিটক্স ওয়াটারের ইতিবৃত্তান্ত। 

ডিটক্স ওয়াটার কি? 

সাধারণত ঠান্ডা পানিতে পুষ্টিকর ফলমূল, উপকারী সবজি এবং ঔষধি ভেষজ ঘণ্টাখানেক ডুবিয়ে রাখলে যে পানীয়ের মিশ্রণটা পাওয়া যায় তাকেই ডিটক্স ওয়াটার বলে। বিভিন্ন ধরণের ফলমূল, সবজি এবং ভেষজ থাকায় এই পাণীয়ের ফ্লেভার হয় দারুণ। তাছাড়া, এতে থাকে না সুগার বা ক্যালরি। ফলে মেদ কমিয়ে শরীর ঝরঝরে রাখতে ডিটক্স ওয়াটারের কোনো তুলনা নেই। 

এছাড়া, যকৃত সুস্থ রাখতে এই পানীয় দারুণ কার্যকর। শরীর থেকে ক্ষতিকর টক্সিন দূর করতে সহায়তা করে ডিটক্স ওয়াটার। তাছাড়া, খাদ্য হজম, শরীরের যাবতীয় অবসাদ দূরীকরণ, এবং অ্যাসিডিটির সমস্যা নির্মূলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এই পানীয়। 

উপকারিতা 

ডিটক্স ওয়াটারের উপকারিতার প্রচুর। সুস্বাস্থ্য এবং শরীর ঝরঝরে রাখার জন্য ডিটক্স ওয়াটারের বিকল্প নেই। চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক এর উপকারিতাসমূহ। 

ত্বককে ডিটক্সিফাই করে: ডিটক্স ওয়াটার ত্বককে টক্সিন বের করে দিয়ে ভেতর থেকে ত্বককে স্বাস্থ্যকর করে তোলে। তাই আপনার ত্বকে যদি ব্রণ, মেছতা এবং দাগের প্রবণতা থাকে; তাহলে ডিটক্স ওয়াটার আপনাকে পরিষ্কার এবং দাগহীন একটি ত্বক গড়তে সাহায্য করবে। 

ত্বক হাইড্রেট রাখে: স্বাস্থ্যকর ত্বক অর্জনের মূল চাবিকাঠি ত্বক ভালোভাবে হাইড্রেট রাখা। ফলের নির্যাস এবং ভিটামিন আপনার ত্বককে ভেতর থেকে হাইড্রেট এবং পুষ্ট রাখতে সহায়তা করে। সারাদিনের হাইড্রেশনে বুস্ট করে এবং আপনার ত্বককে রাখে স্বাস্থ্যকর। 

অ্যান্টি এজিং হিসেবে কাজ করে: ডিটক্স ওয়াটার ত্বকের নমনীয়তাকে উন্নত করতে সহায়তা করে, কোলাজেনের উৎপাদন বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং ত্বকের বাধ্যর্কজনিত লক্ষণগুলোর উপস্থিতি হ্রাস করে। ফলে ত্বক হৃষ্টপুষ্ট এবং তারুণ্যে থাকে ভরপুর। 

ত্বকে আনে দীপ্তি: ফলমূলে পূর্ণ এই পানীয়তে মিনারেল এবং ভিটামিনের মতো পুষ্টিগুণ থাকে যা ত্বকের উজ্জ্বলতার বুস্টার হিসেবে কাজ করে। ডিটক্স ওয়াটার মূলত একটি প্রাকৃতিক স্কিনকেয়ার মেডিসিন; যা আপনার নিস্তেজ ত্বকে অনবদ্য উজ্জ্বলতা আনে। 

সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে সুরক্ষা: ডার্ক সার্কেল, ব্রণ, শুষ্ক ত্বক, ডার্ক স্পট, লালচে ভাব, র‍্যাশ এবং চামড়ার ভাঁজ – এসবের পেছনে মূল অপরাধী সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মি। এই ক্ষতিকর রশ্মি থেকে সারাদিনের জন্য ত্বককে বাঁচাতে দিনের শুরুতে এক গ্লাস ডিটক্স ওয়াটারই যথেষ্ট। 

এছাড়াও শরীরের মেদ কমিয়ে আনে, অতিরিক্ত মিষ্টি খাবার প্রবণতা থেকে রক্ষা করে, খাবারের হজমে সহায়তা করে, শারীরিক অবসাদ দূর করে এবং শরীরকে এনার্জেটিক ও ফ্রেশ রাখে। 

প্রস্তুত প্রণালী 

ডিটক্স ওয়াটার তৈরি করার পদ্ধতি খুবই সহজ এবং একদমই ঘরোয়া। শুরুতেই একটা পরিষ্কার কাঁচের জারে বিশুদ্ধ পানি নিন। পানির পরিমাণ নির্ভর করছে আপনার পানি পানের প্রয়োজনীয়তার উপর। তবে অন্তত ৫০০ মিলির নীচে যেন না হয়। এরপর সেই পানিতে সব ধরনের রসালো ফল (যেমন – আঙ্গুর, আপেল, কমলা লেবু, লেবু, তরমুজ), সবজি (শসা, গাজর) এবং ভেষজ (মধু) ইত্যাদি কুচি কুচি করে কেটে দিন। সবকিছুই যেন খোসাসহ থাকে। খোসা ছাড়ানো যাবে না। এরপর ঠান্ডা স্থানে কিংবা ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন। ডিটক্স ওয়াটার হতে সময় নেয় ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা। তাই রাতের বেলা ঘুমানোর পূর্বে বানিয়ে রাখলে সকালবেলা উঠেই খালি পেটে খাওয়া যায় এই পানীয়। চাইলে একবারে সারাদিনের জন্যেও বানিয়ে রাখতে পারেন। যত দরকার তখন পান করে নিলেন। সুগন্ধির জন্য পুদিনা পাতা দেয়া যেতে পারে। তবে একদিনের কাঁটা ফল দিয়ে পরেরদিন ডিটক্স ওয়াটার বানালে তাতে কোনো উপকারই হবে না। 

পানীয়তে কি কি দিবেন তা মূলত রুচির উপর নির্ভর করে। তবে সাইট্রাস ফল বা লেবু জাতীয় ফল (যেমন – লেবু, কমলা, আঙ্গুর, জাম্বুরা, মাল্টা), স্ট্রবেরি, আপেল, শসা, তরমুজ, পুদিনা পাতা, অ্যাপেল সিডার ভিনেগার, এলোভেরা, আদা, গ্রীষ্মকালীন ফল (যেমন – পেঁপে, আনারস, কিউই ফল, পেয়ার) ইত্যাদি বিশেষভাবে কার্যকর ডিটক্স ওয়াটারের ক্ষেত্রে। 

 

সোর্স: DRINK YOUR WAY TO HEALTHY SKIN WITH DETOX WATER. 
02. Detox Water: Drink Your Way to Clear Glowing Skin. 
03. ডিটক্স ওয়াটার। 

 

0 I like it
0 I don't like it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *