ফেসিয়াল ম্যাসাজ এর উপকারিতা । ঘরে বসেই কিভাবে করবেন

ফেসিয়াল ম্যাসাজ

ফেসিয়াল ম্যাসাজ

অনেকেই রিল্যাক্সেশনের জন্য বডি মাসাজ নিতে পছন্দ করেন। এতে বডির ব্লাড সার্কুলেশন ঠিক থাকে, ঘুম ভালো হয় আবার বডির স্কিন ও অনেক ভালো থাকে। ঠিক সেইভাবে ফেসিয়াল ম্যাসাজ ও করা যায়। কমন ফেসিয়াল মাসাজ টেকনিক বলতে যা বোঝানো হয় সেটা মূলত হাত এর সাহায্যে করা হয়ে থাকে। স্কিনে হাত ও হাতের বিভিন্ন অংশ দিয়ে আলতো ভাবে স্ট্রোকিং, ট্যাপিং, রোলিং করাকে মূলত ফেইস মাসাজ বলা হয়।

সারাদিনের পলিউশনে, কাজের চাপে স্কিনে অনেক স্ট্রেস এর ছাপ পড়ে যায়, রিল্যাক্সড থাকেনা। এর ফলে স্কিন টায়ার্ড দেখায়। কারন স্কিনে বেশি চাপ পড়ার কারনে অক্সিজেন কমে যায় ও ব্লাড সার্কুলেশন ঠিকঠাক হতে পারেনা।

ফেসিয়াল মাসাজ স্কিন থেকে টায়ার্ডনেস ঝেড়ে ফেলে স্কিনকে সতেজ রাখতে হেল্প । মাসাজের ফলে স্কিনের মাসল টেনশন কম হয়, এজিং প্রসেস স্লো করে, চোখের নিচের ফোলা ভাব, ডার্ক সার্কেল, রিংকেলস, ফাইন লাইনস ও স্কিন ইনফ্ল্যামেশন কমায়। অন্যদিকে ফেসিয়াল ম্যাসাজ কোলাজেন প্রডিউস করতে হেল্প করে।

সবথেকে ভালো বিষয় হলো ফেইস মাসাজ বাসায় বসেই করা যায় কিছু টেকনিক ফলো করার মাধ্যমে। হাতের তালু, আঙ্গুল অথবা jade roller এর সাহায্যে এই মাসাজটি ৫-৭ মিনিটের মতো করে ফেলা যায়।

কিভাবে ফেসিয়াল ম্যাসাজ করবেন?

সার্কুলার মোশনে কপালে আঙ্গুল দিয়ে আলতোভাবে মালিশের মতো করতে হবে।

হাতের তালু ও ফিঙ্গারটিপস এর সাহায্যে ফেইসের দুই সাইডে মাসাজ করতে পারেন। চিবুক থেকে শুরু করে কপালে গিয়ে আবার কপাল থেকে একইভাবে চিবুক আসতে হবে।

রিং ফিঙ্গার আইব্রো তে প্রেস করে ধীরে ধীরে ইনার আই ব্রো থেকে আউটার আই ব্রো তে আসতে হবে। এরপর একই মুভমেন্ট চোখের নিচেও করতে পারেন।

থাম্ব ও ফার্স্ট ফিঙ্গার দিয়ে আই ব্রো এর বাইরের দিক থেকে জেন্টলি পিঞ্চ করে করে আই ব্রো এর ভেতরে আগাতে হবে।

আঙ্গুল দিয়ে দুই আই ব্রো এর মাঝখানে প্রেস করে জেন্টলি হেয়ারলাইনের চারদিকে মাসাজ করে আবার কপালে ফিরে আসতে হবে। এরপর আঙ্গুল দুই আই ব্রো এর মাঝখানে প্রেস করে ক্লক ওয়াইজ ও কাউন্টার ক্লক ওয়াইজ মাসাজ করতে হবে।

ইনডেক্স ও মিডল ফিঙ্গার দিয়ে গালের উপরের অংশ যাকে চিকবোন বলা হয় তার নিচে প্রেস করতে হবে। তারপর ফেইসের মাঝখান থেকে শুরু করে কপালের দিকে মুভ করতে হবে।

আরেকটু বেশি প্রেস করতে চাইলে হাতের ও আঙ্গুলের গিঁটগুলোর সাহায্যে করা যায়। সেক্ষেত্রে নাক থেকে শুরু করে গালে মুভ করে সেখান থেকে কানের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

দুই হাতের বৃদ্ধাঙ্গুল ও প্রথম দুই আঙ্গুল দিয়ে চিবুকের মাঝখান থেকে pinch/press করতে হবে। তারপর সেখান থেকে কান এর এরিয়া পর্যন্ত একইভাবে pinch/press করতে হবে।

তারপর Jawline এ আঙ্গুল দিয়ে প্রেস করে চিবুকে গিয়ে থামতে হবে।

এরপর ইয়ারলোব এরিয়াতে সার্কুলার মোশনে ম্যাসাজ করতে হবে।

এর পরের স্টেপে হাতের সবথেকে ছোটো আঙ্গুল এর বাইরের দিক দিয়ে নেক এরিয়াতে প্রেস করতে হবে। এরপর উপর থেকে নিচে মুভ করতে হবে।

রিং ফিঙ্গারের সাহায্যে দুই আই ব্রো এর মাঝখানের অংশে স্ট্রংলি প্রেস করতে হবে। তারপর সেখান থেকে ধীরে ধীরে মুভ করে আই ব্রো এর চারদিকে ম্যাসাজ করতে হবে।

এরপর ফিঙ্গারটিপস এর সাহায্যে পুরো ফেইসে হালকাভাবে ট্যাপ করতে হবে। তারপর স্কিনের ফ্লেশি এরিয়াতে ধীরে ধীরে pinch করতে হবে।

দুই হাতের সব আঙ্গুল ধরে নেক এরিয়ার মাঝখান থেকে শুরু করে চিবুকের নিচ পর্যন্ত রোলিং স্টাইলে ম্যাসাজ করে যেতে হবে।

ফেসিয়াল ম্যাসাজের উপকারিতা

স্কিন সুন্দর, সুস্থ ও গ্লোয়িং রাখতে ফেসিয়াল ম্যাসাজ এর পাশাপাশি হেলদি ডায়েট মেইনটেইন করা ও স্ট্রেস ফ্রি লাইফস্টাইল একজন মানুষের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা বজায় রাখতে অনেক বড় ভূমিকা পালন করে।

Reference:

0 I like it
0 I don't like it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *