বিশেষ দিবসগুলোতে প্রিয়জনের জন্য ভিন্ন ধাঁচের উপহার

ভিন্ন ধাঁচের উপহার

আসছে ভালোবাসা দিবস। ইউরোপ-আমেরিকার মত এখন বাংলাদেশেও বিপুল আয়োজনে পালিত হচ্ছে ভ্যালেন্টাইনস ডে। আর এই বিশেষ দিবসকে আরেকটু স্পেশাল করতে প্রচলিত হয়ে আসছে প্রিয়জনকে উপহার দেয়ার প্রথা। আর এই উপহার দিতে গেলেই যত বিপত্তি। কোনটা রেখে কোনটা উপহার দিবো কিছুতেই মাথায় আসছে না। আর শুধু কি ভালোবাসা দিবস? জন্মদিন, এনিভার্সারি বা বিশেষ কোনো দিনে উপহার দেয়ার কথা ভাবলেই মাথায় আসে ভিন্ন কিছু দেয়ার চিন্তা যা আপনার বিশেষ মুহূর্তকে আরো বিশেষ করার পাশাপাশি প্রিয়জনের ঠোঁটে আনবে হাসির ছোঁয়া। তাই আজকের আয়োজন প্রিয়জনকে মুগ্ধ করতে কিছু ছোট খাটো টিপস নিয়ে।

১। গোলাপের বদলে দিন ভিন্ন ধাঁচের উপহার

লাল গোলাপ ভালোবাসার প্রতীক। তাই প্রিয়জনকে ভালোবাসা নিবেদনের জন্য গোলাপ দেয়ার প্রচলন চলে আসছে যুগ যুগ ধরে। তবে এই লাল গোলাপের বদলে ভিন্ন কিছু দিলে কিন্তু মন্দ হবে না। বরং ভিন্ন কোনো ফুল আপনার বিশেষ দিনকে করে তুলবে এক্টুখানি অন্যরকম। গোলাপের বদলে দিতে পারেন এক গুচ্ছ দোলনচাঁপা বা এক তোড়া লিলি ফুল যা সৌন্দর্যের সাথে সাথে সুঘ্রাণেও অদ্বিতীয়। এছাড়া বর্ষার দিনে দিতে পারেন একগুচ্ছ কদম ফুল বা এক থোকা বেলি ফুল। অথবা আরেকটু ভিন্নতা আনতে চাইলে যেকোনো একটি রঙের বেশ কিছু বেনামী ফুল আনলেও কিন্তু মন্দ হবে না। আসলে ফুল মানেই সৌন্দর্য তাই যেমনটাই হোক না কেনো আচমকা কোনো দিন এক থোকা ফুল এনে দিলেও দিনটি হয়ে উঠবে বিশেষ একটি দিন।

২। হয়ে উঠুন একটুখানি ‘ওল্ড স্কুল’

নিত্যদিন আধুনিক যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে চাইলেও ভালোবাসাটা কিন্তু একটু ওল্ড স্কুলই ভালো লাগে। ৯০’ দশকের ল্যান্ডফোনের প্রেম ফিরে না পেলেও উপহারের ক্ষেত্রে কিন্তু ওল্ড স্কুল গিফট বেশ ভালো লাগবে। দিতে পারেন প্রিয়জনের পছন্দের বই বা হাতে লেখা চিঠি অথবা সাথে দিতে পারেন একটা ভিন্টেজ কার্ড। প্রেমিকা বা স্ত্রীকে হাত ভরা কাঁচের চুড়ি বা টিপ দিলেও কিন্তু মন্দ হবে না। আর যদি শাড়ির জন্য থাকে আপনার চেয়ে বেশি ভালোবাসা তাহলে তো কথাই নেই। পছন্দের একটি শাড়ি আপনার প্রিয়জনের ঠোঁটে আনবে মুগ্ধ করা হাসি।

৩। মন জয় করুন তার প্রিয় খাবার দিয়ে

মজাদার খাবার পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। কথিত এক প্রবাদ আছে যে মানুষের মনের রাস্তা আসে তার পেট থেকে। আর প্রিয়জনের হাতের রান্না পছন্দ করবে না এমন মানুষ পাওয়া দুষ্কর। তাই বিশেষ দিনগুলোতে প্রিয়জনের জন্য নিজ হাতে রান্না করুন তার পছন্দের খাবার। আর যেকোনো কিছু দোকান থেকে কিনে দেয়ার থেকে নিজ হাতে তৈরিতে থাকে এক বিশেষ মর্যাদা। আর এর মাধ্যমে সম্পর্কের প্রতি আপনার বিশেষ প্রয়াস আরো বেশি ফুটে ওঠে।

৪। তাকে দিন ভিন্ন ধাঁচের উপহার ও ভালোবাসার উষ্ণতা

প্রিয়জনের কাছে ভালোবাসার উষ্ণতা থাকুক আপনার অনুপস্থিতিতেও। উপহার দিতে পারেন পছন্দমত একটি গায়ের চাদর কিংবা সোয়েটার বা হুডী। সবসময় ব্যবহার করাও হলো আবার আপনার উপস্থিতি সর্বদা তার সাথেও থাকলো। চাইলে আরো দিতে পারেন একটি সুন্দর নকশি কাঁথা যা গিফট হিসেবে হবে যেমন ইউনিক তেমনি প্রয়োজনীয়।

৫। সবসময় থাকুক নিরাপদে

প্রিয়জনের নিরাপত্তা আমাদের সব থেকে বড় কামনা। তাই প্রিয়জনকে দিতে পারেন নিরাপদে পথ চলার জন্য কোনো প্রয়োজনীয় বস্তু। তার বাইকের শখ থাকলে দিতে পারেন একটি ভালো মানের হেলমেট। এছাড়া সাথে রাখার জন্য দিতে পারেন নিজ ধর্মের কোনো বিশেষ কিতাব, আয়াত বা মন্ত্র যা আপনার বিশ্বাসকে দিবে সান্তনা।

আপনি চাইলে এখন অতি সহজেই আপনার প্রিয়জনের জন্যে ভিন্ন ধাঁচের উপহার দিতে পারেন। ভিন্ন ধাঁচের ফুল হতে শুরু করে খাবার আইটেম, কাপড় থেকে শুরু করে তার সুরক্ষা ও নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে আপনি পরিকল্পনা করতে পারেন কিভাবে তার জন্য আয়োজন করবেন।

0 I like it
0 I don't like it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *