স্কিনকেয়ার রুটিনে ফলের নির্যাস এর শক্তি

স্কিনকেয়ার রুটিনে ফলের নির্যাস

স্কিনকেয়ার রুটিনে ফলের নির্যাস! অবাক লাগে। কোরিয়ান স্কিনকেয়ার স্পেশালিস্টরা সবসময় চেষ্টা করেন যেন তাদের স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টগুলোতে ইনগ্রেডিয়েন্ট গুলোর পুরোটাই ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্ট এ ভরপুর থাকে। ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্ট হিসেবে কোরিয়াতে বেশ কিছু জনপ্রিয় ইনগ্রেডিয়েন্ট আছে যার মধ্যে কিছু Fruit extracts যুক্ত স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টস রয়েছে যেগুলো স্কিনে অনেক ভালো কাজ করে।

কিছু ফলের নির্যাস এ যেমন Avocado, Strawberry, Pomegranate, Tomato, Yuja, Berry, Apricot স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট এ কোরিয়ানরা অ্যাড করেছে যাতে স্কিন ফলের নির্যাস ভালোভাবে অ্যাবজর্ব করতে পারে। ফল খাওয়ার পাশাপাশি যদি সেটার বেনিফিট স্কিনেও প্রোভাইড করা যায় তাহলে কিন্তু খারাপ হয়না।

জেনে নেয়া যাক স্কিনকেয়ার রুটিনে ফলের নির্যাস গুলো কেন উপকারি

Avocado

অ্যাভোকাডো থেকে মূলত অ্যাভোকাডো এক্সট্র্যাক্ট ও অ্যাভোকাডো অয়েল নেয়া হয়। অ্যাভোকাডো তে আছে Monounsaturated fatty acids, Oleic acid এবং Vitamin C, A এবং E। অ্যাভোকাডো অয়েল এ প্রচুর পরিমানে ফ্যাট থাকে যা ড্রাই ও ফ্লেকি স্কিনের জন্য বেশ ভালো। আবার অ্যাভোকাডো অয়েল এডিবল হওয়ায় এটি হেলদি ও ব্যালান্সড ডায়েট চার্টে ও অনেকে রাখতে পছন্দ করেন।

এতে আছে অ্যান্টি এজিং প্রপার্টিজ। ভিটামিন ই ও প্রচুর ফ্যাটি এসিড থাকায় অ্যাভোকাডো স্কিনকে হেলদি রাখে ও স্কিনে কোলাজেন প্রোডাকশন বাড়িয়ে স্কিনের ইলাস্টিসিটি ইম্প্রুভ করে। ফলে স্কিনে প্রিম্যাচিউর এজিং দেখা দেয়না। একনে ব্রেকআউট কন্ট্রোলেও হেল্প করে। অ্যাভোকাডো সমৃদ্ধ ময়শ্চারাইজার বা টোনার যদি ইউজ করা হয় তাহলে স্কিনে ইরিটেশন কমে ও একনে ব্রেকআউট কমে কারন এতে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি ইনগ্রেডিয়েন্ট।

এছাড়া অ্যাভোকাডো স্কিন ব্যারিয়ার স্ট্রং করে, স্কিনকে হাইড্রেট রাখে। ভিটামিন এ, ডি ও ই থাকায় এটি স্কিনকে সান ড্যামেজ থেকেও প্রোটেক্ট করে।

Strawberry

স্ট্রবেরি এক্সট্র্যাক্ট স্কিনকে UV Rays থেকে প্রোটেক্ট করে। UV Rays স্কিনের কোলাজেন প্রোডাকশনে বাধা দেয়। ফলে স্কিনে প্রিম্যাচিউর এজিং এর ছাপ পড়ে। রিংকেলস ও ফাইন লাইনস দেখা দেয়। এতে আছে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টস রয়েছে। এছাড়াও এতে আছে Ellagic acid এবং Anthocyanin যা স্কিনকে UV Rays এর কারনে যে স্কিন ড্যামেজ হয় সেটা হতে দেয়না।

স্ট্রবেরিতে Alpha hydroxy acids যা ডেড স্কিন সেলস গুলো রিমুভ করে। রাফ স্কিনকে স্মুথ করে। স্কিন থেকে ডালনেস দূর করতে হেল্প করে। Salicylic acid যা এক ধরনের Beta hydroxy acid স্কিনের একনে স্পট, একনে ব্রেকআউট ও হাইপারপিগমেন্টেশন কমাতে হেল্প করে। স্কিনের পোরস ভিজিবিলিটি কমায়। Vitamin C থাকায় স্কিন হেলদি থাকে ও ইরিটেটেড স্কিনকে সুথ করে।

Pomegranate

Pomegranate অ্যান্টি এজিং ইনগ্রেডিয়েন্ট হিসেবে বেশ জনপ্রিয়। এতে আছে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টস যা free radicals রিমুভ করতে হেল্প করে। স্কিন সেল রিজেনারেশনে হেল্প করে। ফলে স্কিন টানটান থাকে। স্কিনের হাইড্রেশন লেভেল বাড়িয়ে দেয়। স্কিনকে প্রিম্যচিউর এজিং থেকে প্রোটেক্ট করে।

এতে Vitamin C থাকায় স্কিনের ডালনেস দূর হয়। বিশেষ করে ড্রাই ও ডিহাইড্রেটেড স্কিনে Pomegranate Extract যুক্ত স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টগুলো বেশ ভালো কাজ করে। স্কিনে যেসব ব্যাকটেরিয়ার কারনে একনে ব্রেকআউট হয় সেগুলো স্কিন থেকে সরিয়ে ফেলে। অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি প্রপার্টিজ থাকায় স্কিনের ইনফ্ল্যামেশন দূর করে। এছাড়াও স্কিনের একনে স্পট রিমুভ করে। Pomegranate Extract স্কিনের অক্সিডেটিভ স্ট্রেস দূর করে, স্কিনকে সানবার্ন থেকে প্রোটেক্ট করে ও স্কিনকে রাখে রিংকেল ফ্রি।

Tomato

টমেটো ভিটামিন ও নিউট্রিয়েন্ট যুক্ত একটি ফল যাতে আছে প্রচুর পরিমানে Lycopene আছে যার জন্য টমেটোর যেই ব্রাইট রেড কালার আমরা দেখতে পাই এবং এই রঙ কে সূর্যের ক্ষতিকর UV Rays থেকে প্রোটেক্ট করে। ঠিক তেমনি আমাদের স্কিনেও এটি একইভাবে কাজ করে। টমেটো এক্সট্র্যাক্ট স্কিনকে সানবার্ন এর হাত থেকে প্রোটেক্ট করে। স্কিন থেকে ডেড সেলস সরিয়ে স্কিনে হেলদি গ্লো আনে। স্কিনে অ্যান্টি এজিং প্রোপার্টিজ অ্যাড করে স্কিনে কোলাজেন প্রোডাকশন বাড়াতে হেল্প করে।

টমেটো স্কিনে ন্যাচারাল এক্সফলিয়েটরহিসেবে কাজ করে ফলে পোরস ক্লগ হয়না। এমনকি এটি পোরস এর ভিজিবিলিটি কমাতেও হেল্প করে। স্কিনকে ময়শ্চারাইজড করে ও হাইড্রেট রাখে। স্কিন এর অতিরিক্ত সেবাম কন্ট্রোল করে ফলে স্কিনের গ্রিজিনেস বা চিটচিটে ভাব কমে যায়। তাই একনে প্রোন, রেডনেস প্রোন, অয়েলি, ড্রাই, কম্বিনেশন বা সেনসিটিভ যে ধরনের স্কিনই হোক না কেন টমেটো এক্সট্র্যাক্ট এই সব ধরনের স্কিনে বেশ ভালো কাজ করে কোনো ধরনের সাইড ইফেক্টস তৈরী করা ছাড়াই।

Yuja

Yuja Fruit Extract এ আছে high concentration এর Vitamin C থাকে যা স্কিন ব্রাইটেনিং এ বেশ কাজের। এছাড়া এতে অ্যান্টি এজিং প্রপার্টিজ থাকায় কোলাজেন প্রডিউস করতে হেল্প করে। আবার স্কিনের ফ্রি র‍্যাডিক্যাল সরিয়ে স্কিনকে রাখে রিংকেল ফ্রি। UV Rays স্কিনের ভেতর ঢুকে স্কিনের কোলাজেন রিডিউস করে ফেলে তাই স্কিনে রিংকেল ও ফাইন লাইনস দেখা দেয়। Yuja Fruit Extract স্কিনকে সান ড্যামেজ থেকে প্রোটেক্ট করে।

এতে Vitamin A থাকায় স্কিনে একনে কন্ট্রোলে হেল্প করে। একনের কারনে স্কিন মাঝে মাঝে ফোলা লাগে  কারন একনে ব্রেকআউটের কারনে স্কিনে ইনফ্ল্যামেশন বেড়ে যায়। এতে থাকা Vitamin C একনের আকার ছোটো করতে সাহায্য করে। এতে আরো আছে citric acid যা স্কিনের ডেড সেলস দূর করে এক্সফলিয়েশনে হেল্প করে। Vitamin A স্কিনের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া সরিয়ে স্কিনে হেলদি গ্লো আনে। স্কিনকে ক্লিয়ার দেখায়।

Berry

Berry Extract স্কিনকে UV Rays থেকে প্রোটেক্ট করে, স্কিনে অ্যান্টি এজিং ইনগ্রেডিয়েন্ট অ্যাড করে ফলে স্কিনের রিঙ্কেলস, ফাইন লাইনস ভিজিবিলিটি কম হয়। এতে আছে ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট অক্সিডেটিভ স্ট্রেস কমিয়ে স্কিনের এজিং প্রসেস স্লো করে। ফলে স্কিনের সেল ড্যামেজ কম হয় তাই স্কিন থাকে হেলদি। স্কিনে হেলদি গ্লো আনে। এছাড়াও প্রচুর Water ও Fibre থাকায় স্কিন হাইড্রেট থাকে।

Apricot

অ্যাপ্রিকট অ্যান্টি এজিং ও স্কিন সুথিং ইনগ্রেডিয়েন্ট হিসেবে খুব জনপ্রিয়। এছাড়া ও এতে আছে Calamine ও Kaolin যা রেডনেস কমায়। এক্সেস সেবাম অ্যাবজর্ব করে। তাই Apricot সেনসিটিভ স্কিন ফ্রেন্ডলি। Apricot স্কিনে একনে কন্ট্রোল করে। তাই ব্রেক আউট ও ব্লেমিশ ট্রিট করতে হেল্প করে। Apricot Oil স্কিন স্মুথ করতে ও স্কিনে নারিশমেন্ট যোগায়। কারন এতে আছে Oleic ও Linoleic Fatty Acids যা স্কিনকে ময়শ্চারাইজড রাখে।

সুতরাং আমরা দেখলাম কোরিয়ান স্কিনকেয়ার রুটিনে ফলের নির্যাস কিভাবে বহুল ব্যাবহৃত। ন্যাচারাল উপাদান এর মাধ্যমে স্কিনকেয়ার করে লম্বা সময়ের জন্য সুফল লাভ করা যায়।

0 I like it
0 I don't like it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *