৮ কার্যকরী উপায়ে সহজ এ দূর করুন চোখের নীচের কালো দাগ

চোখের নীচের কালো দাগ

চোখের নীচের কালো দাগ কীভাবে দূর করবেন?

অনেকেই এমনটা জিজ্ঞেস করে থাকে যে – চোখের নীচের কালো দাগ বা ডার্ক সার্কেল কি মারাত্মক কোনো স্বাস্থ্য সমস্যা? নাহ ব্যাপারটা তেমন নয়। তবে এই  দাগ আপনাকে রোগাটে, বয়স্ক, জীর্ণশীর্ণ এবং অসুস্থ দেখাবে অন্যের কাছে। কি লাভ এত রূপচর্চা করে যত অন্যের সামনে নিজেকে এরকম দেখায় চোখের নীচের কালো দাগের কারণে।

চোখের নীচের কালো দাগ দূর করার বিভিন্ন উপায় এবং চিকিৎসা রয়েছে। প্রাকৃতিক এবং মেডিক্যাল – দুই পদ্ধতিতেই চোখের নীচের কালো দাগ থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে। যদিও এসবের কোনটাই দীর্ঘস্থায়ী চিকিৎসা নয়। কেননা, দীর্ঘস্থায়ী ফলাফল ভোগের জন্য আপনাকে নিয়মিত যত্ন আর রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে। আর আজকের আয়োজনে থাকছে কালো দাগ দূর করার বিভিন্ন উপায়। তবে তার আগে জেনে নেই কেন চোখের নীচে কালো দাগ পড়ে।

চোখের নীচের কালো দাগের কারণ কি? 

চোখের নীচের কালো দাগের মূল কারণ হিসেবে ধরা হয় ক্লান্তি। কেননা, ক্লান্তি সাপেক্ষে বিশ্রাম পরিপূর্ণ না হলে ত্বক গাঢ় হয়ে যায় নিমেষেই। এছাড়া, বয়স বাড়ার সাথে সাথে ত্বকের আভা কমে এলে চোখের নীচে কালো দাগ দেখা দিতে শুরু করে। বয়স বাড়লে ত্বকের চর্বি এবং কোলাজেন হ্রাস পায় ফলে ত্বক পাতলা হয়ে যায়। আরো বিভিন্ন কারণে এমনটা হয়ে থাকে। যেমন –
  • এলার্জি
  • এলার্জি রাইনাটিস
  • অ্যাটপিক ডার্মাটাইটিস
  • কন্ট্যাক্ট ডার্মাটাইটিস
  • বংশগত
  • অনিয়মিত পিগমেন্টেশন
  • অনিয়ন্ত্রিত চোখ ঘষা
  • সূর্যের এক্সপোজার ইত্যাদি।

চোখের নীচের কালো দাগ দূর করার উপায় 

চোখের কালো দাগ দূর করা নানান উপায় রয়েছে। যেহেতু সবার ত্বকের গড়ন এক নয়, তাই অনেকের ক্ষেত্রে অনেক উপায় কার্যকর নাও হতে পারে। ঘরোয়া উপায় ছাড়াও রয়েছে চিকিৎসার সুযোগ।

ঘুম বা বিশ্রাম 

অবসাদ এবং ঘুমের অভাব চোখের নীচের কালো দাগ তৈরি করতে পারে। এছাড়া, এটি মুখমণ্ডলকে বিবর্ণ করে তোলে ফলে কালো দাগ আরো বেশি গাঢ় দেখায়। এর থেকে মুক্তি পেতে চাইলে প্রতিদিন নিয়ম মেনে ন্যূনত্ব ৮ ঘণ্টার ঘুম প্রয়োজন। ভালো ঘুমের অভ্যাস শরীরের যাবতীয় অবসাদ আর ক্লান্তি দূর করে।

কোল্ড কমপ্রেস 

মাঝে মধ্যে অতিরিক্ত ফুলে ওঠা রক্তনালীগুলো চোখের নীচের কালো দাগ তৈরি করে থাকে। কোল্ড কমপ্রেস পদ্ধতির মাধ্যমে রক্তনালীগুলো সঙ্কুচিত হয়ে আসে এবং কালো দাগও হ্রাস পায়। কোল্ড কমপ্রেসকে সহজ ভাষায় বললে বুঝায়, ঠাণ্ডা কাপড় বা মাস্ক দিয়ে চেহারা মিনিট দশেক ঢেকে রাখা।

শসার টুকরো 

শসা ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায় এবং কষাটে ভাব দূর করে। বৃত্তাকারে শসার টুকরো কেটে তা আধা ঘন্টা ফ্রীজে রেখে ঠাণ্ডা করে নিতে হবে। তারপর সেটা চোখে দিয়ে ১০ মিনিট রাখতে হবে। এরপর কুসুম গরম পানি দিয়ে চোখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

ময়শ্চারাইজার 

ময়শ্চারাইজারে থাকে ক্যাফেইন, ভিটামিন ই, অ্যালো, হায়ালুরোনিক এসিড এবং রেটিনলের মতো যা উপাদান; যা চোখের নীচের কালো দাগের বিরুদ্ধে দারুণ কার্যকরী। দিনে দুইবার ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত। দিনের বেলা এসপিএফ থাকা হাল্কা ধরনের এবং রাতের বেলা ভারী ধরনের ময়শ্চারাইয়াজার।

ভিটামিন ই এবং বাদাম তেল 

ভিটামিন ই এবং বাদাম তেল সমান পরিমাণে মিশ্রিত করে ঘুমানোর আগে কালো দাগের উপর আলতো করে ম্যাসেজ করতে হবে। সকালে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে তা ধুয়ে ফেলতে হবে। চোখের  কালো দাগ দূর না হওয়া অবধি এই প্রক্রিয়াটি রাতের বেলা চালু রাখতে হবে।

টি-ব্যাগ 

প্রাকৃতিক নিরামকরা দুটি টিব্যাগ চোখে দেয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। ক্যাফিনেটেড টি-ব্যাগ ব্যবহার করুন। প্রথমে তা গরম পানিতে ভিজিয়ে নিয়ে পরে ফ্রীজে রেখে দিন কয়েক মিনিটের জন্য। তারপর চোখের উপর টি-ব্যাগগুলো রাখুন এবং মিনিট দশেক অপেক্ষা করুন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে চোখ দিয়ে ফেলুন।

স্কিন লাইটেনিং ক্রিম 

স্কিন লাইটেনিং ক্রিমে এজেলাইক এসিড, কোজিক এসিড, গ্লাইকোলিক এসিড, বা হাইড্রোকুইনোন এর মতো উপাদান থাকে; যা ত্বককে হালকা করে দেয়। তবে অনেকের ত্বকে এটি চুলকানি বা অস্বস্তি ভাব আনতে পারে। তাই ডাক্তারের পরামর্শ ব্যতীত ব্যবহার করা উচিত নয়।

লেজার ট্রিটমেন্ট 

লেজার ট্রিটমেন্টে ড্যামেজ কোষগুলো বাষ্পায়িত করতে তাপ শক্তির ব্যবহার করা হয়। ত্বকের গাঢ় দাগ হালকা করার পাশাপাশি লেজার ট্রিটমেন্ট কোলাজেন উৎপাদনেও সাহায্য করে থাকে। ভাস্কুলার লেজারের মাধ্যমে দৃশ্যমান রক্তনালীগুলো সঙ্কুচিত করে ফেলা হয়, আর এভাবেই ত্বকের গাঢ় দাগ হ্রাস পায়।

লিংক: 
📞 ত্বকের সমস্যার জন্য প্রোডাক্ট সাজেশন পেতে কল করুনঃ 01790 270066 অথবা ইনবক্স করুন। 
🌐 ১০০% অরিজিনাল কোরিয়ান প্রোডাক্টঃ https://chardike.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © chardike blog 2021
1 I like it
0 I don't like it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *