উৎসবে আনন্দে সাথে নিন কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস

উৎসবে আনন্দে সাথে নিন কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস

নতুন বছরে আরেকটি নতুন বসন্তকে বরণ করে নিতে আমাদের উৎসাহের কমতি নেই। নিজেকে সাজিয়ে নিতে ম্যাচিং শাড়ি, চুড়ি, গহনা সবকিছুই তো রেডি তবে এই সাজগোজ পুরো দিনের সৌন্দর্য ধরে রাখবে তো? বাইরের রোদ, ধূলা, জ্যাম আর ভীড় ভাট্টায় দিন শেষে সাজগোজের হয়ে পড়ে বেহাল দশা । তাই বিশেষ উৎসবে প্রয়োজনীয় জিনিস সাথে রাখুন যা আপনাকে রাখবে পুরো দিন সতেজ ও প্রাণবন্ত।

১। সাথে রাখুন ছোট একটি পারফিউম

সুগন্ধ কার না ভালো লাগে? সুগন্ধ আমাদের মস্তিস্ককে প্রশান্তি দেয় এবং মনকে রাখে প্রফুল্ল। তাই পুরোদিনের ক্লান্তি দূর করতে আপনার ছোট্ট হাতব্যাগটিতে রাখুন একটি ছোট্ট পারফিউম বা বডি মিস্ট। প্রয়োজন অনুসারে অল্প একটু স্প্রে করলেই আপনি থাকবেন পুরো দিন সতেজ।

২। ব্যাগে রাখুন কম্প্যাক্ট পাউডার 

সারাদিনের দৌড় ঝাপে দিন শেষে মেকআপ ঠিক রাখা অসম্ভব হয়ে উঠে। তাই সাথে রাখুন লুজ পাউডার বা কম্প্যাক্ট পাউডার। সময় বুঝে হালকা একটু টাচ আপ আপনার মেকআপকে রাখবে পুরো দিন ফ্রেশ।

৩। ছাতা কিংবা সানগ্লাস রাখতে ভুলবেন না

নামে ফাল্গুন হলেও সূর্যের তাপ কিন্তু চৈত্র মাসের থেকে কম যাবে না। তাই রোদ থেকে বাঁচতে ছাতা কিংবা সানগ্লাস সাথে নিতে কিন্তু একদমই ভুলবেন না। রোদ, ঘাম খুব সহজেই আমাদের চেহারায় ক্লান্তি ফুটিয়ে তুলে তাই ছাতা ব্যবহারে আপনি থাকবেন দীর্ঘ সময় পর্যন্ত ক্লান্তিহীন।

৪। সুরক্ষা সবার আগে

উৎসব মানেই ভীড় ভাট্টা। আর লোক সমাগমের কথা চিন্তা করলেই প্রথমে মাথায় আসে নিজের সুরক্ষার কথা। তাই নিজের সাথে রাখুন প্রতিরক্ষামূলক ছোটখাটো বস্তু সেটা হতে পারে সূক্ষ্ম কোনো খোপার কাটা, সেইফটি পিন, নেইল কাটার বা এন্টি কাটার। এছাড়া চাইলে রাখতে পারেন ছোট এক বোতল  পেপার স্প্রে। আজকাল অল্প কিছু উপকরণ দিয়ে ঘরে বসেই পেপার স্প্রে তৈরী করা যায়।

৫। লিপস্টিক ভুলে গেলে চলবে না

বেড়াতে যাবো আর খাওয়া দাওয়া হবেনা তেমনটা তো হতেই পারে না। আর খেতে গেলেই আসে যত বিপত্তি, লিপস্টিক মুছে গেলে তো সাঁজটাই অপূর্ণ থেকে যাবে। তাই ব্যাগে অবশ্যই লিপস্টিক রাখতে ভুলবেন না, চাইলে এই লিপস্টিক ব্লাশ হিসেবেও ব্যবহার করতে পারবেন যা আপনাকে ইন্সট্যান্ট ফ্রেশ লুক দিবে।

সুতরাং আমরা দেখলাম যে আমরা কি কি প্রয়োজনীয় জিনিস সাথে রাখা উচিৎ। উৎসব যেহেতু সবসময় হয় না তাই যখনি হয় আমাদের অবশ্যই যথাসম্ভব প্রস্তুত থাকা দরকার। উপরোক্ত পাঁচটি স্টেপ মনে রাখলেই আমরা মোটামটি প্রস্তুত থাকব।

0 I like it
0 I don't like it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *