আরগান অয়েল কেনো আপনার চুলের জন্যে ভালো

আরগান অয়েল

সুন্দর ও উজ্জ্বল চুল পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা সবারই থাকে। শরীর সুস্থ থাকলে যেমন মন ভালো থাকে, তেমনি চুল ঘন ও সুন্দর থাকলে আত্নবিশ্বাস বহুগুণে বেড়ে যায়।

কিন্তু অনেক কারনেই চুলের উপর প্রতিদিন অনেক চাপ পড়ে, ফলে চুল হয়ে যায় রাফ, উষ্কো খুষ্কো, মলিন। তারপর শুরু হয় চুল পড়া। মাঝে মাঝে চুল পাতলা হয়ে যায়। কোনো হেয়ারস্টাইল তখন আর করা সম্ভব হয়ে উঠেনা।

তবে চুলের সঠিক উপায়ে যত্ন নেয়া হলে উপরের সমস্যা আর ফেইস করতে হয়না। ব্যস্ত জীবনে হয়তো সবারই সবসময় সঠিক যত্ন নেয়া হয়ে উঠেনা। তাই বলে চুলের যত্ন নেয়া বন্ধ করা যায়না।

চুলের যত্ন নিতে হলে প্রথমেই যেটার নাম আসে তা হলো হেয়ার অয়েল। আজকাল অনেক ধরনের গুনাগুন সমৃদ্ধ হেয়ার অয়েল পাওয়া যায় যেগুলো চুলের পর্যাপ্ত পুষ্টি যোগাতে সাহায্য করে। চুলের যত্নের কথা বললে সবথেকে প্রথমে যে তেল এর নামটি থাকবে তা হলো আরগান অয়েল।

ত্বক ও চুলের যত্নে আরগান অয়েল এর ব্যবহার বহুকাল আগে থেকেই চলে আসছে।

আরগান অয়েল অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টে ভরপুর যা চুল ও মাথার ত্বকের জন্য অনেক ভালো কাজ করে। এছাড়াও এতে আছে এসেনশিয়াল ফ্যাটি এসিডস, ভিটামিন ই চুলকে হাইড্রেট রাখে, চুলকে সফট করে।

আবার মাথার ত্বকের ড্যানড্রাফ দূর করতে সাহায্য করে। এ কারনে মাথায় অনেক সময় ইচিনেস থাকে, ইনফ্ল্যামেশন হতে পারে। আরগান অয়েল মাথার ত্বককে এসবের হাত থেকে রক্ষা করে।

অন্যদিকে এতে এসেনশিয়াল ফ্যাটি এসিডস থাকায় আরগান অয়েল চুলকে সফট ও শাইনি রাখতে হেল্প করে।

এতে আরো আছে ভিটামিন ই, যা চুলের ইলাস্টিসিটি ধরে রাখতে সাহায্য করে এবং চুল ভাঙ্গা কমায়।

আরগান অয়েল এর মলিকিউল অন্যন্য তেল এর তুলনায় অনেক ছোটো তাই চুলে খুব সহজেই অ্যাবজর্বড হয়ে যায়। ফলে চুলে জট কম পড়ে।

আবার চুলে স্ট্রেইটনার, কার্লার ইউজ করার ফলে চুল ফ্রিজি হয়ে যায়, চুল নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আরগান অয়েল চুলকে প্রোটেক্ট করে, চুল পড়া রোধ করে।

আরগান অয়েল যেসব ধরনের পুষ্টিকর উপাদানে সমৃদ্ধ তা হলো

Oleic acid, Linoleic acid, Palmitic acid, Stearic acid, Vitamin E ও Squalene।

তাই আরগান অয়েল চুলকে হেলদি রাখার জন্য অনেক বেশী উপকারি।

বিস্তারিত দেখে নেয়া যাক চুলের যত্নে আরগান অয়েল কী কী ধরনের উপকার করে।

চুলকে হাইড্রেট ও শাইনি রাখতে

যেহেতু আরগান অয়েল অনেক রকম ফ্যাটি এসিড এ সমৃদ্ধ তাই এটি চুলের ও চুলের ত্বকের ময়শ্চার ধরে রাখতে দারুন কাজ করে। এতে আছে oleic ও linoleic acid এর মতো ফ্যাটি এসিড যা পানির সাথে মেশেনা। ফলে এটি চুলের গোড়া থেকে পুষ্টি যোগায় ও চুল ফাটা রোধ করে।

আবার চুল ময়শ্চারাইজড থাকলে চুলের ইলাস্টিসিটি বজায় থাকে। ফলে চুলের শাইনি ভাব বজায় থাকবে।

স্ক্যাল্প এর যত্নে

অনেকের মাথার ত্বকে ইনফ্ল্যামেশন হতে পারে যেমনটি স্কিনে দেখা দেয়। আবার স্ক্যাল্প এ itching বা চুলকানি হতে পারে। আরগান অয়েল এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি প্রপার্টিজ থাকায় এটি চুলের যত্ন নেয়ার সাথে সাথে স্ক্যাল্পের যত্নে ও বেশ ভালো কাজ করে।

কালার করা চুলের যত্নে

বাংলাদেশের মানুষের চুলের রঙ সাধারনত কালো। তাই এই রঙ এর সাথে অন্য কোনো রঙ সেভাবে যায়না। তাই আগে চুলকে ব্লিচ করে নিতে হয়। ব্লিচ করার ফলে চুলের অনেক প্রোটিন লস হয়। কারন হেয়ার ফাইবার মূলত তৈরী হয় প্রোটিন দিয়ে। যখন চুলে কোনো প্রোটিন থাকেনা তখন চুল ড্যামেজ হয়ে যায়। তার মানে হলো চুলে যত প্রোটিন থাকবে চুল তত কম ড্যামেজ হবে।

তাই চুলে ব্লিচ করার পর পরই আরগান অয়েল ইউজ করার পরামর্শ দেয়া হয়ে থাকে। এর ফলে চুল তার হারানো প্রোটিন ফিরে পায়। কারন আরগান অয়েল এর আছে ভিটামিন ই ও প্রোটিন। আবার এটি ওয়াটার সলিউবল না বা পানির সাথে মেশেনা।

সান ড্যামেজ ও চুল ফাটা থেকে চুলকে বাঁচাতে পারে

আরগান অয়েল সান ড্যামেজ থেকে চুলকে প্রোটেক্ট করতে হেল্প করে। কারন এতে আছে ভিটামিন ই, অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট যা চুলের ফ্রি র‍্যাডিক্যাল রিমুভ করে চুলকে UV Rays থেকে রক্ষা করে। কারন আরগান অয়েল UV Rays অ্যাবজর্ব করে ফেলে।

তবে এমন না যে আরগান অয়েল ইউজ করলেই চুল সান ড্যামেজ থেকে পুরোপুরি রক্ষা পাবে। এটি ইউজ করলে চুল খুব সহজে ফাটবেনা বা চুলের গোড়া দূর্বল কম হবে।

বিভিন্ন ভাবে আরগান অয়েল চুলে ইউজ করা যায়।

১। যেসব স্ক্যাল্পে ইচিং হয় ও স্ক্যাল্প ফ্লেকি থাকে, সেসব স্ক্যাল্পের জন্য আরগান অয়েল বেশ ভালো কাজ করে।

এতে যা করতে হবে তা হলো ভেজা চুলে দুই তিন ড্রপ আরগান অয়েল হাতে নিয়ে চুলে ও চুলের ত্বকে ম্যাসাজ করতে হবে। এরপর চিরুনি দিয়ে চুল আচড়াতে হবে যাতে চুলে তেলটা ভালোমতো মিশে যেতে পারে।

চুলকে এভাবেই রেখে দিতে হবে। আর কিছু করতে হবেনা।

২। আবার ড্রাই স্ক্যাল্পে আরগান অয়েল নিয়ে কিছুক্ষন ম্যাসাজ করে অন্তত দুই থেকে তিন ঘন্টা রেখে তারপর মাইল্ড কোনো শ্যাম্পু বা আরগান অয়েল সমৃদ্ধ কোনো শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে।

৩। অন্যদিকে আরগান অয়েল এর সাথে অরগ্যানিক কোকোনাট অয়েল মিক্স করে চুলে দেয়া যায়। রাতের বেলা ম্যাসাজ করে রেখে দিলে অনেক ভালো ফল পাওয়া যায়।

Best Argan oil enriched products to try 

Skinfood Argan Oil Silk Plus Hair Shampoo- 500ml

Skinfood Argan Oil Silk Plus Hair Shampoo- 500ml

Skinfood Argan Oil Silk Plus Hair Conditioner- 500ml

Skinfood Argan Oil Silk Plus Hair Conditioner- 500ml

Skinfood Argan Oil Silk Plus Hair Mask Pack- 200g

Skinfood Argan Oil Silk Plus Hair Mask Pack- 200g

Skinfood Argan Oil Silk Plus Hair Essence- 100ml

Skinfood Argan Oil Silk Plus Hair Essence- 100ml

Skinfood Argan Oil Silk Plus Waterful Curlup Hair Essence- 125ml

Skinfood Argan Oil Silk Plus Waterful Curlup Hair Essence- 125ml

0 I like it
0 I don't like it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *